স্রোতস্বিনীর স্রোতে।


নদীর তীরের ওই মফস্বল শহরেই কেটেছিল শৈশবের কয়েকটি বছর। স্কুল পালিয়েছি আজ। ওই তো, নদীর ঘাটে আমার জন্য অপেক্ষা করছে সহপাঠীরা, পালের হাওয়ায় ঘুরে বেড়াবো সারা দুপুর এই স্বপ্নের নদীতে।


তীর ঘেঁষে ছিল বেদে নৌকার সারি। ওই স্মৃতিচিহ্নের দিনগুলোর কোথাও ছিল নদীর তীরে চড়ুইভাতির নীরব বিলুপ্ত উপস্থিতি।

আমার কলুষিত হৃদয়ে স্বর্গের উপলব্ধি আজ বিলুপ্ত এই বর্তমান পৃথিবীতে। নির্লজ্জভাবে আমার বিষাক্ত অস্তিত্বে অস্বীকার করি এই মহা সত্য, “অতীতের অপূর্ব পৃথিবীর সবকিছুই ছিল প্রকৃতির অলংকার।”

এখন পালতোলা নৌকাগুলো আর নেই স্রোতস্বিনীর মাতৃ ক্রোড়ে। একই সাথে হারিয়ে গেলো বেদে নৌকার সারি।


Leave a Reply