প্রকৃতির প্রতিশোধ!


আজ কেন সমস্যার মুখোমুখি হয়েও আমার অপবিত্র ছদ্মবেশ ছুঁড়ে ফেলতে পারছি না। কি হয় আমার এই ছদ্মবেশের অনুপস্থিথিতে?  আমি কি বেঁচে থাকবো না এই পৃথিবীতে?


 

সবাই ঘরে বন্দী হয়ে আছে আর হয়েছে নিরুপায়। আমি সবাইকে শুধু দোষারোপ করতে শিখেছি কারণ আমি জানি আমার কোনও ভালো গুন নেই আর এই অসমর্থতা ঢাকতে আমি সবাইকে দোষ দিতে ভালবাসি। আমার মতো আরও অনেককে দেখি আমি, তাদেরকেও হিংসা করি। কি যে ভালবাসি আমি তা নিজেও জানি না। প্রশ্ন হল কেন ঘরে বন্দী হয়ে আছি সবাই? কেন উত্তর দেবো আমি এই প্রশ্নের? আমি কখনো বিশ্বাস করিনি ক্ষমতার দম্ভে যে এই প্রকৃতির স্রষ্টা আমি নই। আমি এটাও বিশ্বাস করিনি যে সব কিছুর কর্মফল আছে।

আজকের এই ভোগান্তির কারণ আমি আপনি সবাই। কেন? আমি তো নিষ্পাপ, আমি তো কারো ক্ষতি করিনি কোথাও, তাহলে আমি কেন ভুগবো? এখন আমরা সবাই প্রকৃতির শাস্তি ভোগ করছি আমাদের কর্মফলের কারণে এবং আমরা এখনো শিখছি না এতো ভোগান্তির পরও। কারণ আমাদের মধ্যে আছে এক আশ্চর্যজনক নোংরা মানসিকতা।


মানসিকতাটা হল আমরা জানি একদিন আমরা সবাই মরে যাবো এবং ভবিষ্যৎ পৃথিবীতে কি হবে এতে আমাদের কি আসে যায়। আসলে আমার মতো স্বার্থপর পৃথিবীতে বিরল।


 

আমার কি লজ্জা হয় না যখন আমি আমার সন্তানকে আদর করি আর ভাবি এই পৃথিবীতে আমার সন্তানকে আমার চেয়ে কেও বেশী ভালবাসে না। আমার নিজের জীবনও দিতে পারি আমার সন্তানের জন্য। কিন্তু, আমার এই ভাবনা, ভালবাসা বিশুদ্ধ নয় মোটেও। কারণ আমি আপনি সবাই সৃষ্টি করছি এক বসবাসের অযোগ্য বিপদজনক পৃথিবী আর আমরা রেখে যাবো আমাদের সন্তানদের সেই বিপদজনক পৃথিবীতে। অথচ আমি যতটুকু সম্ভব, সবচেয়ে ভালো জিনিষটা দিতে চেষ্টা করি আমার সন্তানকে। কিন্তু, এই ভালো জিনিষগুলো হবে পুরোপুরি অর্থহীন ওই ভবিষ্যতের বিপদজনক পৃথিবীতে।


 

Leave a Reply